Breaking News

হে মহান প্রতিপালক তোমার কাছে আজ নিজের জন্য কিছুই চাইতে আসিনি || ‎Ali Zulfikar




হে মহান প্রতিপালক তোমার কাছে আজ নিজের জন্য কিছুই চাইতে আসিনি,সিরিয় শিশুগুলো বড় বেশি পাজি ওরা কিছুতেই ভাল থাকতে দিচ্ছেনা।
ওদের রক্তাক্ত মুখ,ছলছল চোখ অস্থির করে তুলছে শুধুই
হাজার মাইল দুরে থেকেও তাদের আর্তনাদ আমার কলিজায় মিসাইলের মতই আঘাত করে ক্ষতবিক্ষত করে দিচ্ছে।
উহহ কি যন্ত্রনা,কি কষ্ট আর পারছিনা প্রভু।
আসাদ পুতিন বাহিনীর নারকিয় গনহত্যা,বিশ্ব নেতাদের নিরব দর্শন,বিশ্ববাসীর শুধুই চেয়ে দেখা সব কিছু সিরিয়ার ছোট্ট শিশুটিও বুঝে গেছিল যে তাদের সাহায্য কেউ করবেনা।মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তে বিশ্ব বিবেকের মুখে থুথু দিয়ে বলেছিল,"আমি আমার আল্লাহর কাছে সব বলে দেবো"। 
হে মহান রব সেই ছোট শিশুটির সাথে কি তোমার দেখা হয়েছিল,তাদের অসহায়ত্বের কথা কি রক্ত মাখা হাত তুলে সে তোমায় বলেছিল?যদি বলেই থাকে তবে কেন তুমি এখনো সহ্য করে যাচ্ছো?জালিম পৃথিবীর কেউ তাদের বাঁচাতে আসবেনা তাদের একমাত্র ভরসা শুধুই তুমি দয়া করে তাদের রক্ষা করো।
যে দৃশ্যের অবতারনা হয় প্রতিক্ষন সেখানে তা কোন সুস্থ মানুষও সহ্য করার ক্ষমতা রাখেনা,সেখানে তুমি কেন সহ্য করছো?
গোলা বারুদের গন্ধ আর বোমা বিস্ফোরনের শব্দ তাদের ঘুম কেরে নিয়েছে,কেরে নিয়েছে শিশুদের শৈশব।যখন আমাদের শিশুরা ঈদের দিন রঙিন পোশাক পরে বন্ধুদের সাথে ছুটাছুটি করে সেখানে তারা?
হ্যা তারাও ছুটাছুটি করে কিন্তু খেলার জন্য নয়,নিজের জীবন বাঁচাতে।
তারাও রঙিন পোশাক পরে কিন্তু নিজের রক্তে রঙিন পোশাক।কোন এক সিরিয় শিশু কাঁদতে কাঁদতে তার মাকে বলেছিল"মা আমাদের আকাশে কি কোনদিন ঈদের চাঁদ উঠবেনা"সেদিন তার মা কি জবাব দিয়েছিল তা জানার সাহস নেই।
তাদের আকাশে কেন আগুনের লেলিহান শিখায় রক্তিম হয়ে থাকে,কেন তাদের জীবনের প্রতিটি সেকেন্ড আতঙ্কময়?
ধ্বংসের স্তুপের মধ্যে থেকে শিশুর যে পা বেড়িয়ে ছিল শুধু তা কি আমাদের দেখিয়ে গেল আমরা তাদের বাঁচাইনি তাই?সুন্দর ভবিস্যৎ গোল্লায় যাক,তাদের শুধু একটু স্বভাবিক ভাবে বেঁচে থাকার নিশ্চয়তা দিতে পারিনা এ লজ্জা কাদের?
কোথায় আজ জাতিসংঘ,কোথায় মানবাধীকার সংস্থা,,সিরিয়ায় যারা মরছে তাদের পক্ষে কেন কেউ এগিয়ে আসেনা?
ওখানে যারা মরছে তারা কি মানুষ নয়?মানুষ দেখতে কেমন হয় বড় বেশি জানতে ইচ্ছা করে আজ।

সাদ্দামের ফাঁশি হয় শিয়া হত্যার অভিযোগে,লাদেন মরে জঙ্গি বলে,গাদ্দাফিরাও মরে,সিরিয়ায় যারা নিরিহ মানুষ গুলোকে হত্যা করছে তাদের কেন ফাঁশি হয়না?
কোথায় আ মুসলিম নেতারা,কোথায় আজ তাদের লম্ফঝম্প?সিরিয়ায় প্রতিক্ষন জন্ম হয় যেসব রক্ত ফুল তাদের রক্তের ঘ্রানে কি তারা নেশা করে?
বিশ্ব নেতাদেরও কি মনে হয় অবুঝ শিশুরা শাপলা চত্বরের মত লাল রঙ মেখে শুয়ে থাকে,তারাতো প্রতিবাদও করেনি তারা কেবলইতো বেঁচে থাকার অধিকার চায় তবে কেন আমাদের এই নিরবতা?
মুসলমানদের রক্ত কি আজ পানি হয়ে গেল?
তারা কি তাদের অতিত ভুলে গেছে?তারা কি ভুলে গেছে তারা আলী,উমার,খালিদদের ওয়ারিস?তাদের ক্ষমতা কি ভুলে গেছে?
হে মহান উমার,আলী,উসমনা আর একবার ফিরে আসুন পৃথিবীতে।
দেখে যান মুসলমানদের মেরুদন্ড ভেঙে গেছে দেখে যান তারা হুঙকার দিতে ভুলে গেছে,তাদের রক্তে একবার আগুন জালিয়ে দিয়ে যান দয়া করে।
হে মহান প্রতিপালক যারা এই নিরিহ মানুষ গুলোকে হত্যা করছে তাদের হেদায়াত চাইনা তাদের ধ্বংস চাই,তাদের নিশ্চিহ্ন করে দেন আপনার পবিত্র জমিন থেকে।

বিশ্ব বিবেকের মুখে লাথি দেই যারা কেবল এসি রুমে বসে কেবলই বড় বড় কথা বলে যায়।তাদের পাঁজরে অভিশম্পাত যারা নিরব থাকে।রক্ত পিপাশু শুয়ারদের কন্ঠনালী ছিন্ন করার জন্য একজন নেতা পাঠাও হে প্রতিপালক যে মুসলমানদের রক্ষা করবে।
তোমার গায়েবী মদদের অপেক্ষায় পুরো মুসলিম উম্মাহ।

No comments