Breaking News

খালেদা জিয়া তার জন্য রাখা হুইল চেয়ারে নয় হেঁটেই লিফটের পথ ধরলেন তিনি |BD420

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে। তার জন্য রাখা হুইল চেয়ারে নয়… হেঁটেই লিফটের পথ ধরলেন তিনি।
শনিবার (৭ এপ্রিল) বেলা ঠিক সাড়ে ১১টায় খালেদা জিয়াকে বহনকারী গাড়িটি হাসপাতালের কেবিন ব্লকের সামনে থামে। কিছুক্ষণ পর খালেদা জিয়া নেমে আসেন গাড়ি থেকে। পাশেই প্রস্তুত রাখা হয়েছিলো একটি হুইল চেয়ার। যার সকল নিরাপত্তা তল্লাশি আগেই সম্পন্ন ছিলো। কিন্তু খালেদা জিয়া সেটি ব্যবহার না করে কেবিন ব্লকের লিফটের দিকে এগিয়ে যান।
হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল্লাহ- আল হারুন তার সঙ্গে ছিলেন। লিফটে পঞ্চম তলায় ৫১২ নাম্বার কেবিনে নিয়ে যাওয়া হয় খালেদা জিয়াকে। সেখানে আগে থেকেই প্রস্তুত ছিলো কেবিনটি।
এর আগে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থায় খালেদা জিয়াকে রাজধানীর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের বিশেষ কারাগার থেকে বিএসএমএমইউতে নিয়ে যাওয়া হয়। সামনে পিছনে ছিলো পুলিশের অন্তত আটটি গাড়ি। এছাড়া মোটর বাইকে ছিলেন ছয় জন. 
শনিবার (৭ এপ্রিল) সকাল সোয়া ১১টার দিকে খালেদা জিয়াকে নিয়ে নাজিমউদ্দিন রোডের বিশেষ কারাগার থেকে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। সাড়ে ১১টায় তাকে বহনকারী গাড়িটি হাসপাতালে পৌঁছায়।
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে রাজধানীর পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডে বিশেষ কারাগারে রয়েছেন। সেখান থেকে ঠিক দুই মাস পরে এই প্রথম বাইরে আনা হলো খালেদা জিয়াকে।
গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে কারাগারে পাঠানো হয়।
আর্থ্রাইটিসসহ নানা রোগে ভুগছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। সে কারণেই গত কয়েক দিন ধরে বলা হচ্ছিলো খালেদা জিয়ার চিকিৎসা প্রয়োজন।
 সে লক্ষ্যে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পক্ষ থেকে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে কারাগারে পাঠানো হয়।
সেই বোর্ড রিপোর্ট দিলে তারই পরিপ্রেক্ষিতে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়।যারা ধারাবাহিকতায় তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব চিকিৎসা বিশ্ববিদ্যালয়ে নেওয়া হলো খালেদা জিয়াকে।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্তরা বলছেন, হাসপাতালে খালেদা জিয়ার রক্ত পরীক্ষাসহ বেশ কিছু পরীক্ষা সম্পন্ন হলেই জানা যাবে তাকে হাসপাতালে রাখা হবে নাকি আবার নাজিমউদ্দিন রোডের বিশেষ কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে।

No comments

'; (function() { var dsq = document.createElement('script'); dsq.type = 'text/javascript'; dsq.async = true; dsq.src = '//' + disqus_shortname + '.disqus.com/embed.js'; (document.getElementsByTagName('head')[0] || document.getElementsByTagName('body')[0]).appendChild(dsq); })();