Breaking News

নির্বাচন ঠেকানোর ক্ষমতা কারো নেই :নাসিম


আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত নির্বাচন ঠেকাতে নানা চক্রান্ত-ষড়যন্ত্র করছে। তবে নির্বাচন নিয়ে কোনো ফর্মুলা দিয়ে বা চক্রান্ত ষড়যন্ত্র করে লাভ নেই। নির্বাচন ঠেকানোর ক্ষমতাও কারো নেই। বিশ্বের বিভিন্ন গণতান্ত্রিক দেশের মতো বাংলাদেশেও সংবিধান অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হবে। নির্বাচন হবে অবাধ ও সুষ্ঠু। ওই নির্বাচনী মাঠে যারা ফাউল করবে, জনগণ তাদের লালকার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেবে। গতকাল মঙ্গলবার সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে এক বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।


কাজপুরের বরইতলীতে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ, পাঁচশ আসন বিশিষ্ট শহীদ এম মনসুর আলী অডিটোরিয়াম ও কুড়িপাড়ায় শহীদ এম মনসুর আলী স্মৃতি জামে মসজিদের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে কাজীপুর উপজেলা পরিষদ মাঠে এ জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। জনসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজম্মেল হক ও নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান। সভাপতিত্ব করেন সাবেক এমপি তানভীর শাকিল জয়। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা দেন বগুড়া-৫ আসনের এমপি হাবিবুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু ইউসুফ সূর্য, কাজীপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বকুল ও দলের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী।

কাজীপুরে তিন মন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে মোহাম্মদ নাসিমের নির্বাচনী এলাকা সিরাজগঞ্জ সদরের ছোনগাছা ইউনিয়নের সাহানগাছা থেকে কাজীপুরের মেঘাই পর্যন্ত ২৫ কিঃমি সড়ক জুড়ে প্রায় একশ রঙবেরঙের তোরণ নির্মাণ করা হয়েছিল। জাতীয় পতাকার আবরণ দিয়ে ঢাকা আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকার আকৃতিতে নির্মাণ করা হয়েছিল জনসভার বিশাল মঞ্চ। জনসভার চারদিকে কাজীপুরের নানা মাত্রিক উন্নয়নের ছাপচিত্র শোভা পাচ্ছিল। কাজীপুর পৌরসভা রোড হয়ে আলমপুর চৌরাস্তা পেরিয়ে উপজেলা পরিষদের জনসভাস্থল পর্যন্ত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা রাস্তার দুপাশে লাইনে দাঁড়িয়ে তিন মন্ত্রীকে ফুল ছিটিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

এর আগে তিন মন্ত্রী যৌথভাবে কাজীপুর উপজেলা চত্বরে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। পরে মেঘাই ঘাটে নৌপরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খানের নেতৃত্বে নৌঘাট পরিদর্শন করা হয়। বিকেলে পিপুলবাড়িয়ায় রতনকান্দি, বাগবাটি, চোনগাছা ও মেছড়া ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিন মন্ত্রী যোগ দেন। এখানে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম চৌধুরীসহ মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়। এখানে অন্যান্যের মধ্যে কৃষকলীগ নেতা আব্দুল লতিফ তারিন ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শফিকুল ইসলাম সফি বক্তৃতা দেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। এ কারণেই বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে কাজ করছে। মুক্তিযোদ্ধাদের আবাসন সংকটসহ সকল সমস্যা সমাধান করবে এই সরকার। 

খালেদা জিয়া মিথ্যাচারে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন মন্তব্য করে নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহাজাহান খান বলেন, বিএনপি-জামায়াত খুনির দল। তাদের হাতে দেশ ও দেশের মানুষ নিরাপদ নয়। মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে আন্দোলনের নামে ষড়যন্ত্র চলছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

No comments