Breaking News

সুট টাই পরে আমার প্রতিবেশী মিঃ লুই এবং মিসেস লুই দাওয়াতে যাচ্ছেন । RIGHTBD


সুট টাই পরে আমার প্রতিবেশী মিঃ লুই এবং মিসেস লুই দাওয়াতে যাচ্ছেন । দেখা হলে হাসি মুখে বললেন, আমার একমাত্র ভাইয়ের ছেলে তার ১৮ তম জন্মদিনের পার্টি দিয়েছে শহরের নামকরা একটি ইতালিয়ান রেস্টুরেন্টে, খেতে যাচ্ছি ।

বলে রাখা ভাল যে এখানের নিম্নমধ্যবিত্ত মানুষজনের মাসের অর্ধেক্টাই অর্থনৈতিক দৈন্যদশায় কাটে বিধায় সহসা পার্টিফার্টি খুব একটা কপালে জুটে না ।

পরদিন সকালে গার্ডেনে নিশ্চুপ হয়ে বসে আছেন । জিজ্ঞেস করলাম গতরাতের পার্ট কেমন হয়েছে । বিরস মুখে উত্তর দিলেন, খাবার অনেক দামি এবং সুস্বাদু ছিল । জনপ্রতি ৫০ পাউন্ডের কাছাকাছি বিল এসেছে । দুজনের বিল দিতে গিয়ে আমাদের পুরো মাসের হাত খরচ খতম ।

আমি মুচকি হেসে বললাম, পার্টিতে যদি অথিতিরাই বিল দেবেন তবে পার্টি হোস্টের দায়িত্বটা কি ! নিজে বিল দিয়ে তো যে কেউ যে কোন রেস্টুরেন্টে খেতে পারতো । উনি ল্লম্বা এক দীর্ঘস্বাস ছেড়ে বললেন, বাদ দাও, আমরা এই কৃপনের সমাজে অভ্যস্ত ।

এটি হচ্ছে বহুল আকাঙ্ক্ষিত পশ্চিমা জীবন পদ্ধতি । এখানে কেউ কাউকে খাওয়ায় না । নিজের মাতা পিতাকে একদিন দেখাশুনা করলে সন্তান সেদিনের বেতন চায় । ১৮ বছরের পর নিজের সন্তান বাকি জীবন কোথায় থাকে বেশিরভাগ মা বাবাই জানে না । 

বৃদ্ধ বয়সে তাদের সময় কাটে অনাদর অবহেলা আর অযত্নে, কুকুর অথবা বিড়ালের সাথে । জীবন সায়াহ্নে ভালবাসার কোন হাতের ছোয়া বা মায়াবী কোন আপনজনের কোমল পরশ তাদের কপালে জুটে না । 

বিশাল কৃতকর্মের এ পৃথিবী ছাড়ার আগে শেষ মুখটি থাকে কোন ফিলিপাইনি নার্স অথবা কোন কেয়ার হোমের প্রশাসনিক কর্মকর্তার ।

আমরা সৌভাগ্যবান যে আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় পারিবারিক মূল্যবোধ অনেক বেশি প্রতিস্টিত এবং উন্নত । শুধুমাত্র আইন শৃঙ্খলা এবং জীবনযাত্রার মানের সামান্য উন্নয়ন হলে বাংলাদেশ হবে পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষের দেশ, যে দেশের স্বপ্ন আমি দেখবো আমৃত্যু ।

মোহাম্মদ নুরুল আমিন  এর ফেসবুক ওয়াল থেকে নেয়া। 

No comments