Breaking News

মালেয়শিয়ায় দুর্নীতির ভয়াবহ বিস্তারে হতাশ মাহাথির || RIGHTBD


মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, ‘আমরা সরকারের দায়িত্ব নেয়ার পর যে পরিস্থিতি দেখছি তাতে বিশ্বস্ত কোনো কর্মকর্তা পাওয়াই কঠিন হয়ে পড়েছে। বাইরে থেকে আমরা বুঝতে পারছিলাম, দুর্নীতিগ্রস্ত হয়ে পড়ছে গোটা প্রশাসন। কিন্তু পরিস্থিতি এতটা ভয়াবহ তা প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসার আগে বুঝতে পারিনি।

 সরকার যাদের মাধ্যমে জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেবে, সেই শীর্ষ কর্মকর্তাদের বেশিরভাগই দুর্নীতিগ্রস্ত। আপাদমস্তক দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তায় ঠাসা একটি প্রশাসনের উত্তরাধিকারী পেয়েছি। বাইরে থেকে মালয়েশিয়ার যে ক্ষতিটা আমরা দেখছি ভেতরে তার রূপ আরো বেশি ভয়াবহ। আমরা কখনই আশা করিনি এত বিশাল ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। ’

গতকাল সিএনএন-এ প্রকাশিত এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই হতাশা ব্যক্ত করেন।
মাহাথিরের পূর্বসূরি নাজিব রাজাক জনগণের বিপুল অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ক্ষমতাগ্রহণের পর আমাকে এমন লোকজনকে নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে যারা নিজেরাই দুর্নীতির কারণে বিচারের মুখোমুখি হবার যোগ্য। এদের দিয়ে কাজ চালানো ভীষণ কঠিন একটা কাজ। 

কারণ যাদের আপনি বিশ্বাস করতে পারেন না, তাদের যে দায়িত্ব দিবেন তা তারা আদৌ ঠিকভাবে করবে কি না সেই সংশয় থেকে বের হওয়া কঠিন।’

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের সর্বশেষ সূচক অনুসারে মালয়েশিয়া বিশ্বের ৬২ তম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ। 
মাহাথির বলেন, ‘ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তারা তাদের অর্জিত বিপুল অর্থ নিজেরা এবং স্ত্রী-সন্তানদের বিলাসবহুল বাড়ি-গাড়ি, বিদেশভ্রমণ, কিংবা দেশের বাইরের ব্যাংকে জমা করার সুযোগ পেয়েছেন।

 সরকার তাদের বিন্দুমাত্র বাধা দেয়নি।’ মার্কিন এই গণমাধ্যমকে মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যতদিন সুযোগ পাই জনগণের সেবা করে যাব।



আগে মাহাথির বলেছিলেন, আমি দুই বছর প্রধানমন্ত্রী পদে থাকবো এবং জোটের সহযোগিরা চাইলে তা আরো দীর্ঘায়িত হতে পারে। আমাদের একসাথে কাজ করার শর্ত ২ বছর বা ৩ বছর যাই হোক না কেন, সেটি আমার জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ নয়। আমি জনগণের ইচ্ছাকে মেনে চলব।’



পিএইচ নেতৃত্বাধীন চুক্তি অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর পদে আনোয়ার মাহাথিরের উত্তরাধিকারী হিসেবে নিযুক্ত হবেন। পিকেআর নেতা আনোয়ার এখন আগামী মাসে তার দলের নির্বাচনে প্রেসিডেন্সি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। 



ইতিপূর্বে এক সাক্ষাত্কারে আনোয়ার ইব্রাহিম বলেছিলেন, মাহাথিরকে বিশ্বাস না করার কোনো কারণ নেই। কেননা তিনি ইতোমধ্যে তার প্রতিশ্রুতির প্রমাণ দিয়েছেন।

No comments