Breaking News

স্পট লাইটে যারা || RIGHTBD


গত ১৪ জুন লুঝনিকি স্টেডিয়ামে উদ্বোধনের পর থেকে টালমাটাল অবস্থা রাশিয়া বিশ্বকাপের। গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জার্মানির। সেই সঙ্গে বিদায় নেন মেসুত ওজিল, টনি ক্রুস, থমাস মুলারের মতো তারকারা। রাউন্ড অব সিক্সটিনে এসে আরো বেহাল অবস্থা। 
আর্জেন্টিনা-পর্তুগালের সঙ্গে একই দিন বিদায় নেন হালের দুই সেরা তারকা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পরদিন স্পেনের আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, সার্জিও রামোস। কোয়ার্টার ফাইনালে ঝরে পড়ে ব্রাজিল। একই সঙ্গে নেইমার, কুতিনহো, থিয়াগো সিলভাদের বিদায়ে রঙ হারায় রাশিয়া বিশ্বকাপ। উরুগুয়ের এডিনসন কাভানি, লুইস সুয়ারেজ এবং কলম্বিয়ার রাদামেল ফ্যালকাও, হামেস রদ্রিগেজের বিদায়ে প্রায় তারকাশূন্য হয়ে পড়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ।
সেমিফাইনালে খেলবে ফ্রান্স-বেলজিয়াম ও ক্রোয়েশিয়া-ইংল্যান্ড। এই চার দলেরও তারকার কমতি নেই। এদের মধ্যে রাশিয়া বিশ্বকাপে রঙ ছড়িয়েছেন হাতেগোনা কয়েকজন। উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক হ্যারি কেন, বেলজিয়ামের ইডেন হ্যাজার্ড ও রোমেলু লুকাকু, ফ্রান্সের আন্তোনিও গ্রিজম্যান ও কিলিয়ান এমবাপে আর ক্রোয়েশিয়ার লুকা মডরিচ ও ইভান রাকিটিচ। শেষ চারের লড়াইয়ে স্পট লাইটটা থাকবে এদের ওপরই।
হ্যারি কেন, ইংল্যান্ড : ব্রাজিলের বিদায়ে ফিকে হয়ে যায় বিশ্বকাপ। সেই ফিকে হওয়ার রঙে কিছুটা তুলির আঁচর দিচ্ছেন ইংল্যান্ডের হ্যারি কেন। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি। চার ম্যাচ (গ্রুপ পর্বে বেলজিয়ামের বিপক্ষে খেলেননি) খেলে ছয় গোল করেছেন তিনি। ফলে গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে এককভাবে শীর্ষে আছেন কেন। ১৯৬৬ সালের পর দ্বিতীয় শিরোপার খুব কাছাকাছি আছে ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপের আগে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি। সুতরাং তাকে ঘিরে স্বপ্ন দেখছে ইংলিশরা। আর সেমিফাইনালে কেন থাকবেন সবার নজরে।
গ্রিজম্যান-এমবাপে জুটি, ফ্রান্স : দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জয়ের স্বপ্ন নিয়ে রাশিয়া এসেছে ফ্রান্স। সেই স্বপ্ন পূরণে আর মাত্র দুটি ম্যাচ দূরে তারা। শেষ চারের লড়াইয়ে ফরাসিদের প্রতিপক্ষ বেলজিয়াম। সেই লড়াইয়ে ফ্রান্সের দুই সেন্টার ফরোয়ার্ড আন্তোনিও গ্রিজম্যান ও কিলিয়ান এমবাপে থাকবেন সবার দৃষ্টিতে। রাশিয়া বিশ্বকাপে তিনটি করে গোল করেছেন দুজনেই। গ্রুপ পর্ব থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল সব ম্যাচে আলো ছড়িয়েছেন গ্রিজম্যান। আর রাউন্ড অব সিক্সটিনে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নিজের জাত চেনান এমবাপে। সে ম্যাচে তার দুই গোল ছিল এককথায় অসাধারণ। তাই এই জুটির পাশাপাশি মিডফিল্ডার পল পগবার দিকে নজর থাকবে সবার।
হ্যাজার্ড-লুকাকু, বেলজিয়াম : সোনালি প্রজন্মের হাত ধরে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ট্রফি জয়ের স্বপ্ন দেখছে বেলজিয়াম। আর সেই স্বপ্নে রসদ দিচ্ছেন ইডেন হ্যাজার্ড ও রোমেলু লুকাকু। এ পর্যন্ত বিশ্বকাপে টানা তিনবার ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন হ্যাজার্ড। গোল করেছেন দুটি। আর করিয়েছেন তিনটি। এছাড়া কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের রক্ষণে কাঁপন ধরান তিনি। হ্যাজার্ডের পাশাপাশি বেলজিয়ামের জার্সিতে রঙ ছড়ান লুকাকু। চারটি গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার দ্বিতীয়তে আছেন তিনি। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে বেলজিয়ামের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন দুজনই।
মডরিচ-রাকিটিচ, ক্রোয়েশিয়া : ১৯৯৮ বিশ্বকাপে ধূমকেতুর মতো আবির্ভাব ঘটে ক্রোয়েশিয়ার। প্রথম অংশগ্রহণে সেমিতে নাম লেখায় তারা। ২০ বছর পর আবারো শেষ চারে খেলছে তারা। তাদের মূল ভরসা মধ্যমাঠের দুই কাণ্ডারি লুকা মডরিচ ও ইভান রাকিটিচ। বিশ্বের সেরা দুই ক্লাবের মিডফিল্ড সামলান তারা। গত কয়েক মৌসুম ধরে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের মাঝমাঠের প্রাণভোমরা মডরিচ। আর বার্সেলোনার রাকিটিচও রয়েছেন দুর্দান্ত ফর্মে। বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে শুরু করে কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার জয়ে বড় ভূমিকা রাখেন দুজনেই। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ চারের লড়াইয়ে মডরিচ-রাকিটিচে নজর রাখবেন ফুটবলপ্রেমীরা।

No comments

'; (function() { var dsq = document.createElement('script'); dsq.type = 'text/javascript'; dsq.async = true; dsq.src = '//' + disqus_shortname + '.disqus.com/embed.js'; (document.getElementsByTagName('head')[0] || document.getElementsByTagName('body')[0]).appendChild(dsq); })();