Breaking News

বিএনপির সমাবেশে ২হাজার টাকায় ভাড়াটে কর্মী || RIGHTBD

বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে ঢাকার বাইরে থেকে আসা প্রতিটি কর্মীকে ২০০০ টাকা করে দেয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সমাবেশে যোগ দেয়া এদেরকে ভাড়ায় আনা হয়েছে বলেও জানা গেছে।



গতকাল বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত সমাবেশে আগত নেতা কর্মীদের ২০০০টাকা করে দিয়েছে স্থানীয় নেতারা। বরিশাল থেকে আসা এক কর্মীর সাথে আলাপ কালে জানা যায়, তিনি এসেছেন বরিশাল সদর থেকে, সমাবেশে আসা নিয়ে তিনি বলেন, আমি আগে বিএনপি করতাম, সমাবেশে মিছিলে যাইতাম। 
এখন নিজের পেটের কথা চিন্তা করে শহরে(বরিশালে) রিক্সা চালাই, তবে বিএনপির সমাবেশ হলে মেয়র (বরিশাল সিটির সাবেক মেয়র মজিবুর রহমান সরোয়ার) সাবের এপিএস মোস্তফা আমাদের বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যায়, বিনিময়ে এলাকা অনুযায়ি টাকা দেয়। সারাদেশেই বিএনপির সমাবেশে আমরা ভাড়ায় খাটি, একদিনে থাকা খাওয়া যাতায়াত বাদে দুই থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত ইনকাম হয়।
 ঢাকা এসেছেন তাতে কত পাবেন এমন প্রশ্নের উত্তরে কামাল হোসেন জানায়, লঞ্চে কইরা আনছে, রাতে খাওয়াইছে, সকালে নাস্তা করাইছে, দুপুরে বিরিয়ানি খাওয়াইছে, লঞ্চে উঠার পর দুই হাজার টাকাও দিবে বলছে। আমরা ২১৭ জন একসাথে সুন্দরবন লঞ্চে কইরা ঢাকায় আসছি, যামুও সেই লঞ্চে। 



এই দৃশ্য শুধু বরিশালের নয়, সমাবেশ ঘুড়ে দেখা যায়- রাজশাহী, গাইবান্ধা, বগুরা, ফেনি, নোয়াখালি, চিটাগং, খুলনা, যশোর, নাটোর থেকেও এমন ২০০/৩০০ লোক বাসযোগে ঢাকা এসেছেন। থাকা খাওয়া যাতায়াত বাদে এদের কাউকে ১০০০, কাউকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত দেয়ার ওয়াদা করেছেন নেতারা।
 এছাড়া ঢাকার মধ্যে যারা, তাদের ১ হাজার থেকে ১৫০০ পর্যন্ত টাকা দেওয়া হয়েছে। জনসভায় উপস্থিত দুজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা দুইজনই বাড্ডার একটি কাঠের দোকানে কাজ করে। একদিনে ১৫০০ টাকা দেওয়া হবে বলায় তারা ছুটি নিয়ে বিএনপির সমাবেশে এসেছে।



এক পর্যায়ে তাদের কাছে বিএনপির এই সমাবেশের উপলক্ষ জানতে চাওয়া হলে বলেন, “ভাই রাজনীতি-টিতি বুজি না। মিলে কাম করলে দেয় ৫০০ট্যাকা এইহানে দিব ১৫০০…তাই আইছি।”
উল্লেখ্য, বিএনপির চেয়ারপারস বেগম খালেদা জিয়া দূর্নীতি মামলায় জেলে আছেন, বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সমাবেশে তাই সভাপতিত্ব করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

No comments